সমুদ্রের গভীরে নিয়ম মেনে বিয়ে!


coxmorning প্রকাশের সময় : ফেব্রুয়ারী ৪, ২০২১, ৪:৫৮ অপরাহ্ন /
সমুদ্রের গভীরে নিয়ম মেনে বিয়ে!

ছোট থেকে সাঁতার কাটতে পছন্দ করেন। ভালোবাসেন পানিও। বিয়ে একটু অন্যভাবে হবে, সেই ভেবে একেবারে পানির নিচে, সমুদ্রের গভীরে বিয়ে করার কথা ভাবেন যুবক। বিষয়টি পরিবারকে জানানোর পর ভাবনা অনুযায়ী কাজ শুরু হয়। পরিবার রাজি হয়, মেয়েও রাজি হয়ে যায় প্রস্তাবে। তারপর মঙ্গলবার (৩ ফেব্রুয়ারি) পানির নিচে বিয়ে হয় যুগলের। শুনলে অবাক লাগতে পারে। কিন্তু এমনই ঘটনা বাস্তবে ঘটেছে ভারতের তামিলনাড়ুতে। পিঠে অক্সিজেনের সিলিন্ডার; চোখে চশমা। আপাতদৃষ্টিতে দেখলে মনে হবে স্কুবা ডাইভিং করছেন কেউ। কিন্তু পোশাকের দিকে লক্ষ করলেই দেখা যাবে, সুইমিং স্যুটের বদলে পরনে তাদের বিয়ের সাজ। একজনের গায়ে শাড়ি ও আরেকজনের ধুতি-পাঞ্জাবি। গলায় মালাও দেখতে পাওয়া যায়। পেশায় ইঞ্জিনিয়র এক যুগল তামিলনাড়ুর নীলাঙ্কারাই সমুদ্র উপকূল থেকে কিছুটা দূরে সমুদ্র গর্ভের প্রায় ৬০ ফুট নিচে গিয়ে এভাবেই পরস্পরকে মাল্যদান করলেন। আর এর সঙ্গেই প্লাস্টিকমুক্ত জলাশয় তৈরি করার বার্তা পৌঁছে দিলেন সবার কাছে।

বেশকিছু রিপোর্ট থেকে জানা গেছে, পুরোহিতের নির্দেশমতো মঙ্গলবার সকাল সাড়ে ৭টায় ভি চিন্নাদুরাই ও এস শ্বেতা পানির নিচে যান। প্রথা মেনে সেখানেই মাল্যদানের পাশাপাশি বাকি বিয়ের রীতিও পালন করেন তারা।

এক্ষেত্রে ভি চিন্নাদুরাইয়ের স্কুবা ডাইভিং বা সাঁতারের শখ থাকলেও শ্বেতা স্কুবা ডাইভিং জানতেন না। বিয়ের জন্য এক মাস আগে থেকে অনুশীলন করেন তিনি। সংবাদমাধ্যমকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে শ্বেতা জানিয়েছেন, ছেলের বাড়ি থেকে এই প্রস্তাব আসার পর তিনি দ্বিধায় ছিলেন। ভয়ও ছিল বেশখানিক। একই পরিস্থিতি ছিল তার পরিবারের। কিন্তু পরে তিনি রাজি হয়ে যান এবং অনুশীলন নেন।

শ্বেতা আরও জানান, আট জন স্কুবা ডাইভারের সাহায্যে গত এক সপ্তাহ ধরে সমুদ্রের নিচে বিয়ে করার চেষ্টা করছেন তারা। কিন্তু সমুদ্র উত্তাল থাকায় তা সম্ভব হচ্ছিল না। শেষে গতকাল বুধবার পরিস্থিতি বুঝে পুরোহিতের কথামতো সকালে পানির নিচে বিয়ে সেরে ফেলেন।

ভি চিন্নাদুরাই জানান, ১২ বছর ধরে তিনি স্কুবা ডাইভিং করছেন। তাই বিয়েও পানির নিচেই করতে চেয়েছিলেন। গতকাল বুধবার জলের নিচে তারা বিয়ের জন্য ৪৫ মিনিট ছিলেন। সেখানেই প্রোপোজাল দেন বিয়ের। তার পর মাল্যদান শেষে একে অপরের হাত ধরে কিছুক্ষণ সময় কাটান।

পুরো অনুষ্ঠানটি পানির নিচেই ভিডিও রেকর্ডিং করা হয় এবং তার কিছু ফুটেজ সামনে আসে। সদ্য বিবাহিত এই যুগল জানিয়েছেন, এই কাজের মধ্যে দিয়ে তারা সমাজকে প্লাস্টিকমুক্ত জলাশয় তৈরি করার বার্তা দিলেন। পাশাপাশি কোনও রকম বর্জ্য যাতে নদীতে বা সমুদ্রে না ফেলা হয়, সে নিয়েও বার্তা দিলেন।

এই অনুষ্ঠানে কাউকে সেভাবে নিমন্ত্রণ না করলেও, বিয়ের জন্য তারা একটি সামাজিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করেছেন তারা। যাতে করোনা নিয়মাবলি মেনে বন্ধু ও আত্মীয়দের আমন্ত্রণ জানানো হয়েছে।

কক্সমর্নিং-এস