ঘুণেধরা সমাজ


coxmorning প্রকাশের সময় : ফেব্রুয়ারী ১২, ২০২১, ৯:১৮ অপরাহ্ন /
ঘুণেধরা সমাজ

মর্জিয়া বেগম : 

আমি ঘুমাতে পারি না,বুকে বিভৎস যন্ত্রণা
ঘুমোতে গেলে চোখে ভাসে আর্তনাদ আর কান্না
বুকে চাপা ব্যথায় অনুভবে নীরব যন্ত্রণা-
আমি কিছুতেই ঘুমাতে পারি না।

এসমাজে এখন আর পথ চলা যায়না,
পথে নামলে কাঁটায় বিদ্ধ পা হাঁটতে পারি না,
এসিড দগ্ধ আমার বোনের মুখ,
আমি কিছুতেই পা এগোতে পারি না।

এসমাজে এখন আর ভ্রাতৃত্বের দেখা মেলেনা,
মানুষের মুখোশ রুপে বাস করে হায়েনা।
কে কখন কাকে টেনে ছিঁড়ে নামাবে-
এ-কথা ঘুণাক্ষরে কেউ জানেনা।

যে সমাজের পরতে পরতে স্বপ্নের আনাগোনা,
সে সমাজে আজও অপ্রমাণিত মানুষ আসলে মানুষ কি না!
মুখোশে ঢাকা মনুষ্যত্ব চিন্তায় সদা পশুত্বের,
এরা কখন মানুষ হয় এখনও জানি না।

এসমাজে একা হাঁটতে হোঁচট খাওয়ার ভয়
অজানা আতংকেই আঁতকে থাকি কি না কি হয়!
ভয়ে চলি,সদা মরি,চারপাশ ধারে নিত্য প্রহরী,
আমাকে কাদায় মেখে চুবিয়ে দিলেই এ সমাজে সয়।

মর্জিয়া বেগম
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক
কক্সমর্নিং।