ইসলামাবাদে অবৈধ বালু উত্তোলনের মহাউৎসব


coxmorning প্রকাশের সময় : ফেব্রুয়ারী ১৫, ২০২১, ১০:১২ পূর্বাহ্ন /
ইসলামাবাদে অবৈধ বালু উত্তোলনের মহাউৎসব

ঈদগাঁও প্রতিনিধি : কক্সবাজার সদর উপজেলা ইসলামাবাদে ফুলছড়ি নদী থেকে অবৈধভাবে বালু উত্তোলনের মহোৎসবে মেতেছে প্রভাবশালী একটি মহল।প্রভাবশালীরা ড্রেজার মেশিন বসিয়ে নদীর গভীর থেকে প্রতিদিন অসংখ্য ট্রাক বালু উত্তোলন করছে।এতে গ্রামের সড়ক ঘরবাড়ি ও ফসলি জমি হুমকির মুখে পড়েছে। ভুক্তভোগীরা বালু উত্তোলন বন্ধে প্রশাসনের সংশ্লিষ্ট সবার কঠোর হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।রবিবার ১৪ ফ্রেব্রুয়ারী বিকাল বেলা বর্ণিত ইউনিয়নের রাজঘাট থেকে পূর্ব গজালিয়া এলাকায় এ বালু উত্তোলন দেখা গেছে।

জানা যায়,বর্ণিত ইউনিয়নের বালু দস্যুর এলাকার প্রভাবশালীরা রাজঘাট থেকে শুরু করে পূর্ব গজালিয়ার ফুলছড়ি নদীর বিভিন্ন জায়গায় ২০ থেকে ২৫ টি ড্রেজার বসিয়ে বালু উত্তোলন করে কোটি কোটি টাকা হাতিয়ে নিচ্ছে। এ টাকার ভাগ যাচ্ছে প্রভাবশালী মহলের কাছে।এরা এলাকার প্রভাবশালী হওয়ায় কেউ তাদের বাধা দেয়ার সাহস করে না।এরা নদীর গভীর থেকে বালু উত্তোলন করছে। এতে গর্তের সৃষ্টি হওয়ায় রাজঘাট, গজালিয়া,পূর্ব গজালিয়া, ভোমরিয়াঘোনা গ্রামসহ শত শত বিঘা আবাদি জমি ভাঙনের মুখে পড়েছে। এদিকে অবৈধ বালু উত্তোলন বন্ধ করা না গেলে কয়েকটি গ্রামের বসত ভিটা ও ফসলি জমি নদীগর্ভে বিলন হবে।

২০১০ সালে বালু উত্তোলন নীতিমালায় যন্ত্রচালিত মেশিন দ্বারা ড্রেজিং পদ্ধতিতে নদীর তলদেশ থেকে বালু উত্তোলন নিষিদ্ধ করা হয়েছে। এছাড়াও সেতু, কালভার্ট, রেললাইনসহ মূল্যবান স্থাপনার এক কিলোমিটারের মধ্যে বালু উত্তোলন করা বেআইনি। অথচ বালু দস্যুরা সরকারি ওই আইন অমান্য করে গজালিয়া সড়কের ফুলছড়ি সেতুর কয়েক গজ দূরে থেকে ড্রেজার মেশিন দিয়ে অবৈধভাবে বালু উত্তোলন করছে।

এলাকাবাসীরা জানান, বালু উত্তোলন করা প্রভাবশালী
সিন্ডিকেটে ফুলছড়ি নদীতে ড্রেজার মেশিন দিয়ে অবৈধভাবে বালু উত্তোলন এবং পাহাড় কেটে অপরাধমূলক কাজে ব্যবহার করা অনিবন্ধিত দুইশতাদিক ‘ড্রাম ট্রাক দিয়ে লক্ষ লক্ষ টাকার মাটি ও বালি বিক্রি করে আচ্ছে।ফলে হাজী পাড়া থেকে পূর্ব গজালিয়া এলাকা পর্যন্ত সড়কের প্রায় ৫ কিলোমিটার বর্ষা মৌসুম এলেই এটি চলাচলে অনুপযোগী হয়ে পড়ে।গেল বছরের বর্ষা মৌসুমে গজালিয়া সড়ক বেঙ্গে মরণ ফাঁদে পরিনত হয়েছে। তাই এলাকার বিশ হাজারো অধিক বাসিন্দাদের কথা বিবেচনা করে অপরাধমূলক কাজে ব্যবহার অনিবন্ধিত ‘ড্রাম ট্রাক’ যান চলাচল এবং অবৈধভাবে বালু উত্তোলন বন্ধের জন্য সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।

ইসলামাবাদ ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান নুর ছিদ্দিক বলেন, এ এলাকায় ৩০/৩৫ টা ড্রেজার মেশিন দিয়ে অবৈধভাবে বালু উত্তোলন করছে এমন খবর পেয়ে চৌকিদারের মাধ্যমে নিষেধ করেছি।এরা নিষেধ অমান্য করাই কক্সবাজার সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা এবং পরিবেশ অধিদপ্তর বরাবরে লিখিত অভিযোগ দিয়েছি।এ ব্যাপারে কক্সবাজার সদর সহকারী কমিশনার ভূমি নু এ মং মার্মার মং বলেন, খুব শিগগিরই উত্তোলনকারীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে।সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সুরাইয়া আক্তার সুইটির মুটোফোনে সংযোগ না পাওয়ায় বক্তব্য নেওয়া সম্ভব হয়নি।