রামুতে একই রাতে ৩ সাজাপ্রাপ্ত আসামী কে গ্রেপ্তার করেছেন গর্জনিয়া পুলিশ ফাঁড়ির


admin প্রকাশের সময় : অগাস্ট ২৫, ২০২১, ১১:১১ অপরাহ্ন /
রামুতে একই রাতে ৩ সাজাপ্রাপ্ত আসামী কে গ্রেপ্তার করেছেন গর্জনিয়া পুলিশ ফাঁড়ির

মোঃ সাইদুজ্জামান সাঈদঃ

 

পুলিশ জনগনের বন্ধু আবার অপরাধীদের আজরাইল ”
প্রবাদ যেন শতভাগ সত্যি প্রমান করলেন রামু থানার আওতাধীন ক্রাইমজোন খ্যাত গর্জনিয়া পুলিশ ফাঁড়ির এ এস আই মোহাম্মদ নোমান উদ্দীন।তিনি বাংলাদেশ পুলিশ বাহিনীর গর্বিত কর্মকর্তা।

আজ ২৫ আগস্ট বুধবার ভোররাতে গর্জনিয়া পুলিশ ফাঁড়ির আইসি মোহাম্মদ ফরহাদ আলীর দিক নির্দেশনায় এএসআই মোহাম্মদ নোমান হোসেন সঙ্গীয় ফোর্স কনস্টেবল ওমর ফারুক, রাকিব, শহীদুল্লাহ, আব্দুল মালেক, অপজীত দে অভিনব কায়দায় অভিযানে নামেন।যেমন পরিকল্পনা তেমন ফলাফল অর্জন করেছেন। গ্রেফতার করেছেন ৩ জন সাজা পরোয়ানাভুক্ত কুখ্যাত সন্ত্রাসী কে গ্রেপ্তার করতে সক্ষম হয়েছে।

গর্জনিয়া পুলিশ ফাঁড়ির ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোহাম্মদ ফরহাদ আলী এ প্রতিবেদক কে জানান,গর্জনিয়া ইউনিয়নের ৫ নং ওয়ার্ড জাউচপাড়া এলাকার মৃত কবির আহমদের সন্ত্রাসী মোঃ ফারুক জিআর ৫৪/১৪ ৬ মাসের সাজাভুক্ত পলাতক আসামী একই সাথে বিজ্ঞ আদালত ৫ হাজার টাকা জরিমানা ও করেন সন্ত্রাসী মোঃ ফারুক কে।দীর্ঘদিন পুলিশের চোখ ফাঁকি দিয়ে আত্নগোপনে থাকলে ও চৌকস এ এস আই মোহাম্মদ নোমান উদ্দীনের নেতৃত্বে পরিচালিত বিশেষ অভিযানে পুলিশের জালে ধরা পড়ে সন্ত্রাসী ফারুক।

একই ভাবে একই ইউনিয়নের শাহ মোহাম্মদ পাড়ার পুর্ব জুমছড়ি এলাকার বনখেকো আলী আহমদের পুত্র আদালতের ৬ মাসের সাজা ও ৫ হাজার টাকা জরিমানা ভুক্ত পলাতক সাজাভুক্ত আসামী আবদুন নবী (৩৭) কে বিশেষ কায়দায় ২৫ আগস্ট রাতে গ্রেপ্তার করতে সক্ষম হন পুলিশের চৌকস এএসআই মোহাম্মদ নোমান উদ্দীন নেতৃত্বে গর্জনিয়া পুলিশ ফাঁড়ির বিশেষ টিম।

একই রাতে গর্জনিয়া ইউনিয়নের পূর্ব বোমাংখিল গ্রামের হাজী সোলতান আহমদের পুত্র মৌলভী শামসুল ইসলাম বাবুল ৩ মাস বিনাশ্রম কারাদন্ড -সাজাভুক্ত পরিবারিক মামলা নং ৩৯/০৫ এবং গ্রেপ্তারী পরোয়ানা ভুক্ত জিআর মামলা ৭/১৯। সে পুলিশের চোখ কে ফাঁকি দিয়ে দীর্ঘদিন যাবত পলাতক ছিলেন শেষমেশ পুলিশের সাহসী,সৎ ও কৌশলী এ এস আই মোহাম্মদ নোমান উদ্দীনের নেতৃত্বে পরিচালিত অভিযানে মৌলভী শামসুল ইসলাম বাবুল ও গ্রেপ্তার হন।

একই রাতে তিনজন বিভিন্ন মেয়াদে সাজাপ্রাপ্ত আসামি কে বিশেষ কায়দায় গ্রেপ্তারের ঘটনায় পুলিশ প্রশাসনের ইমেজ পুনর্দ্ধার ও অপরাধীদের মাঝে এএসআই নোমান ধরপাকড় আতংক বিরাজ করছে।পাশাপাশি সাধারণ জনগনের মাঝে আনন্দের বন্যা বইছে এবং অনেকে অপরাধী গ্রেপ্তারে এএসআই মোহাম্মদ নোমান উদ্দীনের ভূয়সী প্রশংসা ও মিষ্টি বিতরণের খবর পাওয়া গেছে।

আপনি আমাদের কোন লিখা কপি করতে পারবেন না।