কক্সবাজারে ৩২ টি স্পটে ফ্রি ওয়াই-ফাই ব্যবহারের সুযোগ

প্রকাশিত: ৯:২৪ অপরাহ্ণ, ফেব্রুয়ারি ১৫, ২০২০

মোঃ আবছার কবির আকাশ : 

তথ্য ও প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক এমপি বলেছেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার প্রত্যাশা ২০২১ সালের মধ্যে ১৬ কোটি মানুষের হাতে সুলভমূল্যে ইন্টারনেট পৌঁছে দেয়ার। সেই লক্ষ্যে কাজ করছে সরকার। প্রযুক্তি নির্ভর মেধায় আধুনিক অর্থনীতি গড়ে তোলা-ই সরকারের মূল লক্ষ্য।

শনিবার (১৫ ফেব্রুয়ারি) পর্যটন নগরী কক্সবাজারের ৩৫টি স্থানে ফ্রি ওয়াই-ফাই জোন উদ্বোধনকালে প্রতিমন্ত্রী এসব কথা বলেন।

কক্সবাজার সাংস্কৃতিক কেন্দ্রে বাংলােদশ কম্পিউটার কাউন্সিল সেলের নির্বাহী পরিচালক পার্থ প্রিতম দেব’র সভাপতিত্বে উদ্বোধনীতে প্রতিমন্ত্রী পলক বলেন, প্রযুক্তি ব্যবহারের মাধ্যমে দেশকে দুর্নীতিমুক্ত করা সম্ভব। তবে, এ দায়িত্ব নিতে হবে নতুন প্রজন্মকে। আর সেজন্য প্রধানমন্ত্রী বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনা নতুন প্রজন্মকে প্রশিক্ষিত করে দক্ষ জনশক্তিতে পরিণত করতে কাজ করছেন।

কক্সবাজার উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের (কউক) তত্ত্বাবধানে চালু হওয়া এ ওয়াই-ফান জোন এক বছর চালু থাকবে উল্লেখ করে অনুষ্ঠানে জানানো হয়, প্রতিটি ওয়াই-ফাই ডিভাইস আনুমানিক ২ হাজার ৭২৮ বর্গমিটার বা ৩০ মিটার রেডিয়াস জায়গা বিস্তার করবে। ৭৪টি ডিভাইস ৩০০ এমবিপিএস ব্যান্ডউয়িথ দেয়া আছে যা প্রতিজন ২০ এমবিপিএস স্পিডে ইন্টারনেট ব্রাউজ করতে পারবেন এবং প্রতিটি ডিভাইস সর্বোচ্চ ১০০ জন ব্যবহারকারীকে যুক্ত করে সুুুবিধা দেবে। প্রতিদিন স্থানীয় ও পর্যটক মিলে প্রায় ৩৮ হাজার লোক ফ্রি ওয়াই-ফাই ব্যবহার করতে পারবেন।

যেসব এলাকায় ওয়াই-ফাই পাওয়া যাবে তা হলো, সুগন্ধ্যা পয়েন্ট, সাইমন বীচ, লাবনী বীচ, কলাতলী বীচ, বিয়াম ভবন, ডলফিন চত্বর, হোটেল মোটেল রোড, জাম্বুর মোড়, রূপচাঁদ ভাস্কর্য, সম্পাদক ভাস্কর্য, হলিড়ে মোড়, প্রেসক্লাব, পুরাতন স্টেডিয়াম, বার্মিজ মার্কেট, রোড কচ্ছপিয়া পুকুর, সার্কিট হাউজ, গোল দিঘি, বনবিভাগ উত্তর ও দক্ষিণ, জেলা প্রশাসনের কার্যালয়, পাবলিক লাইব্রেরি, দৌলদ ময়দান, শহিদ মিনার, জজ কোর্ট, পুলিশ সুপার কার্যালয়, জেলা পরিষদ, হিলটাইন সার্কিট হাউজ, হিল টপ সার্কিট হাউজ, রাডার স্টেশন, কক্সবাজার উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ, গণপূর্ত অধিদপ্তর কার্যালয়, লারপাড়া বাসস্ট্যান্ড, হিমছড়ি ও দড়িয়ানগর।

বিনামূল্যে ওয়াই-ফাই সুবিধা চালু হয়েছে জেনে পেশাজীবী হানিফ ইকবাল ও সমাজকর্মী ওয়াহিদ রুবেল বলেন, বাংলাদেশ ডিজিটালাইজেশনে এগিয়ে যাচ্ছে এটাই তার বড় প্রমাণ। কয়েক বছর আগেও আমরা যা কল্পনাও করতে পারতাম না, এখন ঘরে বসে তা পাচ্ছি।

ফ্রি ওয়াই-ফাই উদ্বোধন অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন কক্সবাজার-৩ আসনের সাংসদ সাইমুম সরওয়ার কমল, কক্সবাজার-২ আসনের সাংসদ আশেক উল্লাহ রফিক, কক্সবাজার-১ আসনের সাংসদ জাফর আলম, কক্সবাজার উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের চেয়ারম্যান কর্নেল (অব.) ফোরকান আহমেদ, কক্সবাজার জেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি অ্যাডভোকেট সিরাজুল মোস্তফা, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক ( শিক্ষা ও আইসিটি) মো. আমিন আল পারভেজ, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (প্রশাসন) মো. ইকবাল হোসাইন।

এর আগে, কক্সবাজার জেলা প্রশাসক কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত ‘ডিজিটাল আইল্যান্ড মহেশখালী’ প্রকল্পের স্টেকহোল্ডারদের নিয়ে এক মতবিনিময় সভায় যোগদেন মন্ত্রী।