বস্রহীন নীথর দেহ

প্রকাশিত: ২:২৪ পূর্বাহ্ণ, মে ২, ২০২০

ফাতেমা খাতুন রুনা

ভয় হয় বেশি তখনি, যখন কারণে-অকারণে
গুনতে হয় অপেক্ষার প্রহর__
ভয় হয় কখন ঘাতক হন্তারক রুপে ফিরে আসে
সদর দরজার তালা ভেঙে চৌকাঠ মারিয়ে
আমার কামরায় প্রবেশ করে ক্ষতবিক্ষত করে শরীর
কামনার তীব্র আকাঙ্ক্ষায়__
তারপার ধারালো চাপাতি দিয়ে এলো পাথারী কুপিয়ে
ফেলে দিলো দেহ থেকে আমার মন্ডু__
ওফ কি কষ্ট কি যন্ত্রণাকর সে কি বুঝবে কেউ
শুধু বুঝবে আমার কোমল আত্মা__
তোমরা হয় তো ভাবো নারীর আত্মা সে কেবলী
নমরুদী পেতআত্মা,কষ্টের অষ্টধাতুতে গড়া__
তাই লোভে তার স্বপ্ন-সাধ তার হৃদয়ের
অব্যক্ত আকুতি তুচ্ছ করে দেহের খেলায় মেতে
ঘটিয়ে দাও জীবের ইতি__
অথচ কখনোই ভাবোনা তার সাথে কত জীবন হয় নষ্ট
আর হত ভাগিনি ভোগ করে কত নিদারুণ যন্ত্রণা __
আহ-সে কি কষ্ট-সে কি বিভস্য যন্ত্রণা –
সইবার কোন ক্ষমতা নেই-পিপাসায় গলা শুকিয়ে চৌচির,
অবলার বাঁচার আকুতি সব তুচ্ছ নরপশুর কাছে__
ঝপসা চোখ আপনের-আপনজনকে খুঁজতে থাকে
আর ভেতরের আত্মা ভেতর থেকে চিৎকার করে
বাঁচাও-আমাকে বাঁচাও-কে আছো-বাঁচাও__
কেউ শুনেনা- কেউ নেই- কেউ আসেনা-কেউ নেই
পরে রয় নিথর দেহ বস্রহীন, বিচার বীহিন হবে সমাধি __